ENGLISH ঢাকাঃ শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮, ০৮:৩৪

প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৯ আগস্ট ২০১৭ ০৬:২১:১৯ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

জমে উঠছে পশুর হাট

দ্যা ডেইলি ডন

ঈদুল আজহা উপলক্ষে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ব্যবস্থাপনায় এবারও রাজধানীতে ২৩টি হাট ইজারা দেওয়া হয়েছে।  তবে  আনুষ্ঠানিকভাবে এসব বৈধ হাটে আজ মঙ্গলবার থেকে বিক্রি শুরু হওয়ার কথা। এর আগেই প্রায় সব হাট চালু হলেও বিক্রি জমে ওঠেনি এখনও। সোমবার কয়েকটি হাটে গিয়ে দেখা গেছে, বিক্রেতার চেয়ে ক্রেতার উপস্থিতিই বেশি। যদিও কেনাকাটা নিয়ে তাড়াহুড়ো নেই কারও। ঈদের আগে কয়েক দিন হাতে থাকায় আপাতত বাজার পর্যবেক্ষণ করে পশু কেনার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ক্রেতারা। অন্যবারের মতো শেষ মুহূর্তের অপেক্ষায় আটকে না রেখে এবার তুলনামূলক কম দামে আগেভাগেই পশু ছেড়ে দেবেন বলে জানান বিক্রেতারা।
আবার দেশের সব এলাকা থেকে এখনও কোরবানির সব পশু হাটগুলোতে পৌঁছানোর অপেক্ষায়ও রয়েছেন অনেকে। আনুষ্ঠানিক বিক্রি শুরু আগের দিন রাজধানীর হাটগুলোতে বিপুল পরিমাণ পশুর আমদানি ঘটেছে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে
দিনভর ট্রাকভর্তি গরু, মহিষ, ছাগল এসেছে বিভিন্ন হাটে। আজকের মধ্যেই প্রতিটি হাট কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে উঠবে এবং বিক্রি জমজমাট হতে থাকবে বলে আশা করছেন বিক্রেতা ও বেপারীরা।
রাজধানীর গাবতলী, বসিলা, মেরাদিয়া, শাহজাহানপুর, যাত্রাবাড়ীসহ ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের একাধিক হাটে গিয়ে বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা হয়। তারা বলেন, গত বছরের পড়তি দামের তেতো অভিজ্ঞতার কারণে তারা এবার আগেভাগেই পশু ছেড়ে দেবেন। কারণ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে বিপুলসংখ্যক বেপারী ট্রাকভর্তি গরু নিয়ে রাজধানীতে আসছেন। ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-টাঙ্গাইল, ঢাকা-মানিকগঞ্জ সড়কের বিভিন্ন স্থানে শত শত পশুভর্তি ট্রাক আটকে আছে। ভারত ও মিয়ানমার থেকেও পশু আসছে। রাজধানীতে এসব পশু প্রবেশের সময় কিছু বেপারী পাইকারি দরে কিনে নিচ্ছেন। সেগুলো হাটে তুলছেন বেপারীরা। নীলফামারীর ডোমারের গরু ব্যবসায়ী আবুল কালাম জানান, তিনি ১৫টি গরু হাটে এনেছেন। ৪৫ হাজার থেকে ১২ লাখ টাকা পর্যন্ত গরুগুলোর দাম চাইছেন তিনি। পশু কিনতে যাওয়া মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা এ এইচ এম সাজ্জাদ বলেন, গরু আগে কিনলে বাসায় রাখা সমস্যা হয়। এ জন্য ঈদের দু-একদিন আগে কিনবেন। তবে গরুর দাম ক্রয়ক্ষমতার মধ্যেই আছে বলে তার অভিমত। হাজারীবাগ বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বেড়িবাঁধ হাটেও প্রচুর পশু উঠেছে। হাটের ইজারাদার আবদুল হাকিম বলেন, শেষ সময়ে হাটের ইজারা পাওয়ায় একটু সময় লেগেছে। তাই পরিপূর্ণভাবে হাট ভরে ওঠেনি। ২৫ বছর ধরে কোরবানির পশু ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত মানিকগঞ্জের পশু ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন বলেন, ছোট-বড় মিলিয়ে হাটে ৩০টি গরু এনেছেন। ভারতের গরু কম আসায় লাভ ভালো হবে বলে তার আশা। লালবাগ বেড়িবাঁধ সংলগ্ন খালি জায়গার হাটে গিয়ে দেখা যায়, সড়কের একাংশ দখল করে গরু বাঁধা হয়েছে। ফলে যানবাহন চলাচল মারাত্মকভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। শাহজাহানপুর মৈত্রী সংঘ মাঠ হাটে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন এলাকা থেকে ট্রাকে করে পশু আনছেন বিক্রেতারা। তবে দীর্ঘ যাত্রায় অনেক পশু দুর্বল হয়ে পড়ছে। ব্যবসায়ীরা জানান, মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের কারণে প্রচুর সময়ক্ষেপণ হচ্ছে। পশুরা না খেয়ে দুর্বল হয়ে পড়ছে।

বসিলা হাটে অন্য হাটগুলোর তুলনায় এরই মধ্যে বিপুল পশু এসে পৌঁছেছে। আরও আসছে। হাট পরিপূর্ণ হয়ে ওঠার পর এখন শহীদ বুদ্ধিজীবী সড়কের দু'পাশের খালি জায়গায় শেড তৈরি করে পশু রাখার জায়গা করা হয়েছে। সড়কে হাট না বসানোর ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের কঠোর নিষেধাজ্ঞা থাকায় এখন পর্যন্ত তা মেনে চলার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছেন ইজারাদার। তবে শেষ পর্যন্ত এই শৃঙ্খলা থাকবে কি-না তা নিয়ে সংশয় আছেন স্থানীয়রা। কবরস্থান সংলগ্ন পশুর শেডে কথা হয় পাবনার বেড়ার বাসিন্দা সিরাজুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, কোরবানির হাটের উদ্দেশ্যে ১০টি গরু বাড়িতে লালন-পালন করেছেন। ট্রাকে করে সেগুলো নিয়ে এসেছেন। সোমবার পর্যন্ত একটিও বিক্রি হয়নি। তিনি আশা করছেন, দু-একদিনের মধ্যেই পুরোদমে বিক্রি শুরু হয়ে যাবে।

রাজধানীর মেরাদিয়া হাটে কালু নামে একটি গরুর দাম উঠেছে ১২ লাখ টাকা। এর বেপারী বাদশাহ মিয়া জানান, নাটোর থেকে ৭টি গরু নিয়ে মেরাদিয়া হাটে এসেছেন তিনি। এরমধ্যে কালু সবচেয়ে বড়। তাই এর দাম ১২ লাখ টাকা হাঁকা হচ্ছে। কালো রঙের গরুটিকে দেখার জন্য লোকজন ভিড় করছে।
হাটের অন্য বেপারীরা জানান, কয়েকদিন ধরে এই হাটে প্রচুর কোরবানির পশু এসেছে। তবে বেচাকেনা  জমে ওঠেনি। 

loading...

আরো খবর

    ট্যাগ নিউজ

    loading...

    সর্বশেষ খবর