ENGLISH ঢাকাঃ বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৭:১৪

প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৭:১৭:০৪ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

হেলমেট নাই তো তেল নাই

দ্যা ডেইলি ডন

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জানিয়েছেন, রাজধানীতে বাস থামানোর জন্য ১২১টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। এসব স্থানে বোর্ড লাগানো হচ্ছে। এর বাইরে কেউ বাস থামাতে পারবে না। বাস স্টপেজ ছাড়া কোথাও জায়গায় বাসের দরজা খুলবে না। যাত্রীরাও বাস স্টপেজ ছাড়া অন্য কোথাও নামতে পারবেন না।
মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে মাসব্যাপী ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার এসব কথা বলেন।

রাজধানীতে কোনো বাস ড্রাইভারকে চুক্তিতে পারিশ্রামিক দেওয়া যাবে না। তাদের বেতনভুক্ত করতে হবে। অন্যথায় সংশ্লিষ্ট পরিবহনের রুট বাতিল করা হবে বলে হাঁশিয়ারি দিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন,  সারা দেশে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে আইনগত প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। আইন প্রয়োগের পাশাপাশি জনসচেতনতা তৈরি করতে কাজ চলছে। প্রত্যেকই যদি আমরা আইনটাকে না মানি তাহলে পুলিশ বা অন্য কারো পক্ষে ট্রাফিকের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা অসম্ভব হয়ে পড়বে। তাই এক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা কামনা করছি। 

তিনি বলেন, সড়কে ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত গাড়ি রয়েছে, অপ্রশস্ত রাস্তা, উন্নয়নমূলক কাজ বিশেষ করে এমআরটি, বিআরটি’র মতো মেগা প্রজেক্টের কাজ চলমান থাকায় যানজট আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।  সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে রাজধানীর জাহাঙ্গীর গেট থেকে জিরো পয়েন্ট সড়কে মডেল ট্রাফিক সিস্টেম চালু করা হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে প্রতিটি সড়কে এই সিস্টেম চালু হবে। 

রাজধানীর যেসব প্রধান সড়কে রিকশা এবং লেগুনা চলে সেগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়ে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, রাজধানীর সড়কগুলোতে সবচেয়ে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয় লেগুনার কারণে। সড়কে দুর্ঘটনার অন্যতম কারণও এই লেগুনা। কাজেই রাজধানীতে আর লেগুনা চলবে না। লেগুনার কোনো রুট পারমিট নেই। রাজধানীতে এতদিন যারা লেগুনা চালিয়েছে, তারা অবৈধভাবে চালিয়েছে। তাই রাজধানীতে লেগুনা চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা ইতোমধ্যে পেট্রোল পাম্প মালিকদের সাথে কথা বলেছি। হেলমেট না থাকলে তারা তেল সরবরাহ করবে না বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। 

আরো খবর

    ট্যাগ নিউজ

    সর্বশেষ খবর