ENGLISH ঢাকাঃ বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৬:১৯

প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ০৪:১২:৫৫ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

‘আগামী বছর থেকে প্রশ্নফাঁস হবে না’

দ্যা ডেইলি ডন

কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জনাব কাজী কেরামত আলী বলেছেন, আগামী বছর থেকে প্রশ্নফাঁস হবে না, এ জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে। সোমবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে ‘এ্যাপটেক শিক্ষা প্রশিক্ষণ সেবা পণ্যের’ উদ্ভাবন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে পরীক্ষার্থীদের নির্ধারিত সময়ের আধ ঘন্টা আগে শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।  ফলে শিক্ষার্থীদের কাছে পরীক্ষার পূর্ব মুহূর্তে প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো সুযোগ থাকছে না। সে জন্য এ ধরনের ঘটনা ঘটলেও এর প্রভাব পরীক্ষার্থীদের ওপর পড়ছে না। আমরা চিন্তা-ভাবনা করছি যে, এমসিকিউ প্রশ্ন তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত পর্যায়ক্রমে নেব। যাতে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সম্ভাবনা থাকবে না। আগামী বছর থেকে প্রশ্নফাঁসের খবরটি আর আসবে না।

কাজি কেরামত আলী বলেন, যারা প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। কীভাবে তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রশ্নফাঁস হচ্ছে এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ ও মতামত চাওয়া হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

চলমান এসএসসি ও সমমানের সব পরীক্ষার প্রশ্নই পরীক্ষা শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে ফাঁস হয়েছে, সেই প্রশ্ন ছড়িয়ে পড়েছে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে। প্রশ্ন ফাঁসকারীকে ধরিয়ে দিতে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ৫ লাখ টাকা পুরস্কারের ঘোষণা দিলেও লাভ হয়নি। এক পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের পর বিভিন্ন ফেইসবুক ও মেসেঞ্জার গ্রুপ থেকে পরের পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের বিজ্ঞাপন চলছে নিয়মিত।  এমন পরিস্থিতিতে পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে পরীক্ষা কেন্দ্রের ভেতরে এবং কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মোবাইল ফোনসহ পাওয়া গেলেই গ্রেপ্তারের  নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে কোনো পরীক্ষার্থী যদি কেন্দ্রে প্রবেশ না করে তবে তাকে আর কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

এ্যাপটেক এবং এডিএন এডু সার্ভিস আয়োজিত এ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন কান্তি সরকার। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার,তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রধান সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ,এটুআই প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার,বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা (সচিব),এ্যাপট্যাক এর প্রধান নির্বাহী অনিল পান্থ,আইডিয়া প্রকল্পের (জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা) হারুনুর রশিদ,কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থ্যার মহাপরিচালক অশোক কুমার বিশ্বাস এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (একাডেমিক) ড.নাসরিন আহমাদ।

আরো খবর

    ট্যাগ নিউজ

    সর্বশেষ খবর