ENGLISH ঢাকাঃ মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮, ০৫:৫১

প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ০৯:৫২:২৬ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

ঠেকানো গেল না পদার্থবিজ্ঞানের প্রশ্ন ফাঁসও !

দ্যা ডেইলি ডন

চলমান এসএসসির সবকটি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে বেশ কিছু উদ্যোগই নিলেও সবই বিফলে গেছে। সর্বশেষ প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে কারও কাছে মোবাইল ফোন পেলে তাকে গ্রেপ্তার করার  নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ততেও প্রশ্ন ফাঁসও ঠেকানো গেল না। মঙ্গলবার এসএসসির পদার্থবিজ্ঞান পরীক্ষার প্রশ্নপত্রও ফাঁস হয়েছে।  

চট্টগ্রাম নগরের মহিলা সমিতি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে পরীক্ষা শুরুর আগে অনন্ত ৫০ জন পরীক্ষার্থীর কাছে ওই প্রশ্নপত্রের কপি পাওয়া যায়। পরীক্ষা কেন্দ্রে বিতরণ করা প্রশ্নের সঙ্গে ওই প্রশ্নপত্রের হুবহু মিল পাওয়া গেছে। 

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. হাবিবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, চট্টগ্রাম আইডিয়াল স্কুল পটিয়া শাখার প্রায় ৫০ জন পরীক্ষার্থী মঙ্গলবার সকালে একটি বাসে করে নগরীর বাংলাদেশ মহিলা সমিতি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে  পরীক্ষা দিতে আসে । পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢোকার আগে ওয়াসা মোড়ের কাছে পরীক্ষার্থীরা জড়ো হয়। এ সময়  মোবাইল ফোনে ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র দেখতে থাকে পরীক্ষার্থীরা। গোপনে সেই ঘটনা জানতে পেরে প্রশাসন সেখানে গিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সাতটি মোবাইল ফোন জব্দ করে। মোবাইল ফোনে পাওয়া প্রশ্নপত্রের সঙ্গে পরীক্ষাকেন্দ্রে বিতরণ করা প্রশ্নের মিল রয়েছে। ওই ৫০ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয় বলেও তিনি জানান।

জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জানান, শিক্ষার্থীদের কাউকে আটক করা হয়নি। তবে পরীক্ষার পর তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে একশ' গজ দূরে এই ঘটনা ঘটে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার সবগুলো প্রশ্নই পরীক্ষা শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে ফাঁস হয় এবং সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন ফাঁসকারীকে ধরিয়ে দিতে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ৫ লাখ টাকা পুরস্কারের ঘোষণা দিলেও ফাঁস বন্ধ হয়নি। সর্বশেষ গত রোববার পরীক্ষার দিন আড়াই ঘণ্টা ইন্টারনেট বন্ধ রাখার উদ্যোগ নিয়ে পরে সোমবার সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার হয়।

এসএসসিতে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগের প্রেক্ষাপটে করণীয় নির্ধারণে গত ৪ ফেব্রুয়ারি কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীরকে প্রধান করে একটি কমিটি করা হয়। রোববার ওই কমিটির প্রথম সভা শেষে তিনি জানান, প্রশ্ন ফাঁসে ব্যবহৃত ৩০০ মোবাইল ফোন নম্বর চিহ্নিত করে সেগুলো বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। এসব মোবাইল নম্বরের মালিকদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযানেও নেমেছে।

loading...

আরো খবর

    ট্যাগ নিউজ

    loading...

    সর্বশেষ খবর