ENGLISH ঢাকাঃ মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮, ০৫:৫৪

প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ০৩:৩১:৩২ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত মেনে নিলেন অপু

দ্যা ডেইলি ডন

অবশেষে চিত্রনায়ক শাকিব খানের বিয়ে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন স্ত্রী চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। সোমবার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পারিবারিক আদালতে এই তারকা দম্পতির বিয়ে বিচ্ছেদ নিয়ে দ্বিতীয় সালিশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তার আগেই অপু বিশ্বাস জানিয়ে দেন, শাকিব খানের বিয়ে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন তিনি। যে জন্য দ্বিতীয় সালিশে যাওয়ার আর কোনো দরকার আছে বলে মনে করেন না তিনি।

তিনি বলেন, 'দাম্পত্য সম্পর্ক টিকিয়ে রখতে হলে একে-অপরের প্রতি আস্থা থাকতে হয়। মনের মিল না হলে কোনো সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা যায় না। একজন স্ত্রীর পক্ষে যা কিছু মেনে নেওয়া সম্ভব, তা মানার চেষ্টা করেছি আমি। তারপরও শাকিব তার সিদ্ধান্তে অনড় থেকেছে। শাকিব যেটা ভালো মনে করেছে, সেটাই করেছে। আমিও তাই ডিভোর্স মেনে নিয়েছি।'

অপু আরও বলেন, 'সবাইকে কোনো না কোনো কিছু আঁকড়ে ধরে বেঁচে থাকতে হয়। আমার এখন একটাই অবলম্বন—অাব্রাম। তাকে নিয়েই আগামী দিনগুলো নতুন করে সাজাতে চাই।'

গত বছরের ২২ নভেম্বর অপু বিশ্বাসের বাসার ঠিকানায় তালাকনামা পাঠান শাকিব খান। তালাকের কারণ হিসেবে নোটিশে বলা হয়, অপু বিশ্বাস শাকিবের পছন্দের সীমার মধ্যে থাকেননি। সম্প্রতি তাদের সন্তানকে গৃহপরিচারিকার কাছে রেখে দেশের বাইরে যান অপু। আইন অনুযায়ী ২২ ফেব্রুয়ারি শাকিব-অপুর তালাক কার্যকর হবে। এর পর শাকিব দেনমোহরের টাকা পরিশোধ ছাড়াও প্রতি মাসে সন্তানের খরচ বাবদ অপুকে এক লাখ টাকা প্রদান করবেন বলে  তার আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম জানান, 

উল্লেখ্য,  ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল দুজনে গোপনে বিয়ে করেন এবং গত সেপ্টেম্বরে কলকাতায় তাদের পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। কিন্তু বিয়ে ও সন্তানের বিষয়টি তারা গোপন রেখেছিলেন। এরপর গত ১০ এপ্রিল সন্তান কোলে টেলিভিশন লাইভে এসে নাটকীয়ভাবে এ বিষয়ে মুখ খোলেন অপু। শুরুতে এ নিয়ে শাকিব নানা কথা বললেও পরে মিটমাট করে ফেলেন। কিন্তু বিয়ের খবর প্রকাশের ৯ মাসের মাথায় অপুকে তালাকনামা পাঠান শাকিব। 

loading...

আরো খবর

    ট্যাগ নিউজ

    loading...

    সর্বশেষ খবর