ENGLISH ঢাকাঃ বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৭:১২

প্রকাশিত : সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮ ০৫:০৬:০৮ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

‘লাব্বায়েক আল্লাহুম্মা লাব্বায়েক’ ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাতের ময়দান

দ্যা ডেইলি ডন

শনিবার ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র হজ পালনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। রোববার থেকেই মক্কার অদূরে মিনায় সাদা কাপড়ে সমাবেত হয়েছেন লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলিম।  হজের অংশ হিসেবে মিনা, আরাফাত ময়দান, মুজদালিফা ও মক্কায় পাঁচদিন অবস্থান করবেন মুসল্লিরা। সেখানে অবস্থান করে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য ইবাদত-বন্দেগি করবেন তারা। সোমবার মিনায় পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ের পর আরাফাতের ময়দানের দিকে রওনা দেবেন হজযাত্রীরা। সাদা ইহরাম বাঁধা অবস্থায় মুসল্লিদের পদচারণায় ‘লাব্বায়েক আল্লাহুম্মা লাব্বায়েক’ ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাতের ময়দান।

আরাফাতের ময়দান থেকে মুজদালিফায় পৌঁছে মাগরিব ও এশা দুই ওয়াক্তের নামাজ একসঙ্গে আদায় করবেন মুসল্লিরা।  মুজদালিফায় খোলা আকাশের নিচে রাত যাপন করে মিনার জামারায় শয়তানকে নিক্ষেপের জন্য পাথর সংগ্রহ করবেন। মঙ্গলবার ফজরের নামাজ শেষে মুসল্লিরা ফিরে যাবেন মিনায়। বুধবার সকালে জামারাতে পাথর নিক্ষেপ করে পশু কোরবানি ও পুরুষরা মাথা মুণ্ডন করে ইহরাম ত্যাগ করবেন। তারপর পবিত্র কাবা শরিফ তাওয়াফ করে হজের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে।

হজ পালনের সময় পুরুষরা সেলাইবিহীন দুই টুকরা সাদা কাপড় দিয়ে শরীর ঢেকে ইহরাম বাঁধবেন। নারীরা ঢিলা পোশাকের মাধ্যমে নিজেদের আবৃত করবেন। তবে হজ পালনকারীদের চুল কাটা, সুগন্ধি ব্যবহার ও শারীরিক সম্পর্কের মতো বিষয় থেকে বিরত থাকতে হবে।

পবিত্র হজ পালনে এবার বিশ্বের ১৫০টি দেশের ২০ লাখেরও বেশি মুসল্লি সৌদি আরবে উপস্থিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে এক লাখ ২৬ হাজার বাংলাদেশি রয়েছেন। 

মুসল্লিদের নির্বিঘ্নে হজ পালনের জন্য সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে মক্কা, মদিনা, মিনা, আরাফাত ময়দান, মুজদালিফা ও এর আশপাশের এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এক লাখের বেশি নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করা হয়েছে।  তাদের পাশাপাশি ২৬ হাজার চিকিৎসা কর্মকর্তা ও চার হাজার পাঁচশ' স্বেচ্ছাসেবী কাজ করছেন। 

বাংলাদেশি হাজিদের জন্য বাংলাদেশ হজ কার্যালয়ের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া হজ সংক্রান্ত নানা তথ্য www.hajj.gov.bd ওয়েবসাইটে জানা যাবে।

আরো খবর

    ট্যাগ নিউজ

    সর্বশেষ খবর