ENGLISH ঢাকাঃ শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮, ০৯:২৩

প্রকাশিত : শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ০৫:২২:১২ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে

দ্যা ডেইলি ডন

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে  বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ঐক্যবদ্ধ থেকে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে দেশের গণতন্ত্র ও গণতন্ত্রের জন্য আজীবন সংগ্রামী নেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। তিনি বলেন, সরকারের একটা আশা ছিল দেশনেত্রীকে আটক করতে পারলে বিএনপি ভেঙে যাবে। বিএনপি ভাঙেনি। বিএনপি আরও শক্তিশালী হয়েছে। আগের চেয়ে অনেক বেশি ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। দেশের জনগণ এখন খালেদা জিয়াকে দেশনেত্রী নয়, দেশমাতা ঘোষণা দিয়েছে।

শুক্রবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে  মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'এখন সবার পরীক্ষার সময়। এমন পরীক্ষা জাতিকে কখনও দিতে হয়নি। আজকে তারা যে সংগ্রাম করছেন, এটা বিএনপির জন্য সংগ্রাম নয়, খালেদা জিয়ার জন্য সংগ্রাম নয়, এই সংগ্রাম দেশকে রক্ষার সংগ্রাম, গণতন্ত্রকে রক্ষার সংগ্রাম। এ দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষার সংগ্রাম।

তিনি বলেন, ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলন আর ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের মাধ্যমে যে গণতন্ত্রের চেতনা অর্জন করা হয়েছিল, তাকে আজ সম্পূর্ণভাবে লুণ্ঠিত করা হয়েছে, অপহৃত করা হয়েছে। আজকে বাংলাদেশের মানুষ তাদের সব অধিকার হারিয়েছে, তাদের ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দুর্ভাগ্য এ দেশের জনগণের। যে নেত্রী অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে আজীবন যুদ্ধ করেছেন, সেই নেত্রীকে কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে দিন কাটাতে হচ্ছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী যখন রাজশাহীতে হেলিকপ্টারে গিয়ে ভোট চাচ্ছেন সরকারি টাকা খরচ করে, তখন কারাগারের অন্ধকারে দিন কাটাতে হচ্ছে গণতন্ত্রের নেত্রীকে। এটা কখনও গণতন্ত্র হতে পারে না। এটা সমান মাঠ হতে পারে না।

আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ বলেন, খালেদা জিয়ার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য সরকার ষড়যন্ত্র করে মামলার রায় দিয়েছে। তিনি কারাগারে যাওয়ার পর তার জনপ্রিয়তা আরও বেড়েছে। তার ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল হয়েছে। এ সময় নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার ব্যবস্থার' দাবি আদায়ে লড়াইয়ের জন্য নতুন করে প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, গণতন্ত্রের জন্য আজীবন সংগ্রামী খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানোর মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে কথা বলার অধিকার হারিয়েছে। আওয়ামী লীগের এমন আচরণের কারণে এখনও তাদের বুদ্ধিজীবীরা ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সালের বাংলাদেশ নিয়ে কথা বলেন না। একটা সময় আসবে যখন তারা বর্তমানের সময়টাকেও ভুলে থাকতে চাইবেন।

সরকারি সুযোগ-সুবিধা নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণার সমালোচনা করে মওদুদ বলেন, একজন নেত্রী জনগণের কাছে ভোটের ওয়াদা নিচ্ছেন, আরেকদিকে আরেকজন নেত্রী কারাগারে।' তিনি আরও বলেন, 'খালেদা জিয়া যতদিন কারাগারে থাকবেন, তার প্রত্যেক দিন আওয়ামী লীগের ১০ লাখ ভোট কমবে আর বিএনপির বাড়বে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে এবং প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানীর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারমান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দীন আহমেদ, এনাম আহমেদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবদীন ফারুক, হাবিবুর রহমান হাবিব, আতাউর রহমান ঢালী, গোলাম আকবর খন্দকার, মনিরুল হক চৌধুরী প্রমুখ।

loading...

আরো খবর

    ট্যাগ নিউজ

    loading...

    সর্বশেষ খবর